সর্বশেষ

বোয়ালখালীতে এস ও এস গ্যাং এর পক্ষ থেকে মাস্ক ও সচেতনতা মুলক লিফলেট বিতরণ

DESK// চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে  সোমবার সকাল থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধমূলক মাস্ক ও লিফলেট বিতরন করা হয়। এসময় এস ও এস বাংলাদেশ ...

Monday, March 23, 2020

8:58 AM

বোয়ালখালীতে এস ও এস গ্যাং এর পক্ষ থেকে মাস্ক ও সচেতনতা মুলক লিফলেট বিতরণ



DESK//

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে  সোমবার সকাল থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধমূলক মাস্ক ও লিফলেট বিতরন করা হয়।

এসময় এস ও এস বাংলাদেশ সাইবার আর্মি সিকিউরিটি গ্যাং এর  উদ্যোগে বোয়ালখালীতে ৫০০ পিস মাস্ক ও সচেতনতা মুলক ৫ হাজার পিস লিফলেট বিতরণ করা হয়। সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত এস ও এস গ্যাং এর সিইও মোহাম্মদ ওমর খৈয়াম এর নেতৃত্বে উক্ত সচেতনতামূলক লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করা হয়।

আরো উপস্থিত ছিলেন এস ও এস গ্যাং এর সদস্য মোহাম্মদ আইয়ুব মোঃ ফাহিম মোঃ আলতাফ, ইসতাদুল ইসয় শিমুল , ইশতিয়াক হোসেন শাওন, মোঃ মুমিন, নয়া দিগন্তের সংবাদিক মোহাম্মদ তৌহিদ।


এস ও এস গ্যাং করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সাধারণ জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে সচেতনতামূলক কার্যক্রম অব্যাহত রাখবে। আগামী ২৫ শে মার্চ ২০২০ ইংরেজি তারিখ রোজ বুধবার সীতাকুণ্ড উপজেলার বিভিন্ন স্থানে দিশা যুব ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ,  এস ও এস গ্যাং , লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং এ্যাঞ্জেল নিউ ক্লাব অব চিটাগাং সীতাকুন্ড, অলিউ ক্লাব অব চিটাগাং লিবার্টি যৌথভাবে জনসমাগম না করে সীতাকুণ্ড উপজেলার ফৌজদারহাট হতে দারোগারহাঁট পর্যন্ত এলাকায় এবং চান্দগাও থাবায় মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ করা হবে।

এস ও এস বাংলাদেশ সাইবার আর্মি সিকিউরিটি গ্যাং সিইও ওমর খৈয়াম আমাদের জানান এস ও এস গ্যাং সবসময় শুধু অনলাইনে সাইবার নিরাপত্তায় না অফলাইনে অনাহারী গরীব ও দরিদ্রদের সাহায্য করার জন্য এক ধাপ এগিয়ে থাকার জন্য আমরা মন প্রাণ দিয়ে চেষ্টা করি। 

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি আমাদের জানান আমরা প্রত্যকে যদি নিজ নিজ জায়গা থেকে নিজেরা সচেতন হই, এবং অন্যদের সচেতন করি এবং বাংলাদেশ গনপ্রজাতন্ত্রী সরকারের নির্দেশনা মেনে চলি। ইনশাআল্লাহ আগামীতে করোনা ভাইরাস আমাদের এই বাংলাদেশে মহামারী রুপ নিতে পারবেনা বলে আশা করা যায়।এসময় তিনি সকলকে নিরাপদে ও করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সকলকে সক্রিয় থাকতে বলেছেন।

Friday, January 24, 2020

5:27 AM

সদরপুরে একতা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরন

নাজমুল হাসান নিরব,স্টাফ রিপোর্টার:

ফরিদপুরের সদরপুরে অসহায় ও দরিদ্র শীতার্তদের মধ্যে ৩ দিন ব্যাপী  কম্বল বিতরণ করছে স্বেচ্ছাসেবী ও অরাজনৈতিক সংগঠন একতা ফাউন্ডেশন।

জানা যায়, গত বুধবার,বৃহস্পতিবার, ও আজ শুক্রবার এই তিনদিন যাবৎ উপজেলার আকোটের চর ইউনিয়ন ও চর বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে প্রায় দুইশত অসহায়,দরিদ্র ও প্রতিবন্ধীদের খুঁজে খুঁজে বের করে কম্বল বিতরণ করেছেন একতা ফাউন্ডেশন।

কম্বল বিতরণকালে একতা ফাউন্ডেশনের সভাপতি মশিউর রহমান মিম জানান,২০১৫ সাল থেকে আমাদের পথ চলা।বিভিন্ন সময় নানান সমাজ সেবামূলক কর্মকান্ডের ধারাবাহিকতায় আমাদের আজকের এই অবস্থান।আমরা নিজেরা মাসিক একটি নির্দিষ্ট পরিমান টাকা জমিয়ে এই সব সেবামূলক কাজ করে থাকি।আগামীতে আরো ভালো ভালো কাজ করতে চাই।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উক্ত সংগঠনের,জাফর মাহমুদ,বাতেন মিয়া,রাজ্জাক,রাকিব মাহমুদ,আজিজুল,জাহিদ, আকমাল ,সুহান ,মোবারক ,মামুন প্রমূখ।

Thursday, January 23, 2020

8:50 AM

জান্নাতে যাওয়ার সহজ মাধ্যমগুলো

হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকী-
আজকে আপনাদের কাছে আমার আলোচনা হলো জান্নাতে যাওয়ার সহজ মাধ্যমগুলো সবাই সংকেপে জেনে নিন!

১, প্রত্যেক ওযুর পর কালেমা শাহাদত পাঠ করুন  (আশ্‌হাদু আল্লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহ্‌দাহু লা- শারী কা লাহূ ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান ‘আব্দুহূ ওয়া রাসূলুহূ)

এতে জান্নাতের ৮টি দরজার যে কোন দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। (১)

২, প্রত্যেক ফরজ সালাত শেষে আয়াতুল কুরসি পাঠ করুণ এতে মৃত্যুর সাথে সাথে জান্নাতে যেতে পারবেন।  (২)

৩, প্রত্যেক ফরজ সালাত শেষে ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ্‌, ৩৪ বার আল্লাহু আকবার এবং ১ বার (লা ইলা-হা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারীকা লাহু, লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু ওয়াহুয়া ‘আলা কুল্লি শাই’ইন কাদীর) পাঠ করুন এতে আপনার অতীতের সব পাপ ক্ষমা হয়ে যাবে। (৩)

সেই সাথে জাহান্নাম থেকেও মুক্তি পেয়ে যাবেন কেননা দিনে ৩৬০ বার এই তাসবিহগুলো পড়লেই জাহান্নাম থেকে মুক্ত রাখা হয় আর এভাবে ৫ ওয়াক্তে ৫০০ বার পড়া হচ্ছে। (৪)

৪, প্রতিরাতে সূরা মুলক পাঠ করুণ এতে কবরের শাস্তি থেকে মুক্তি পেয়ে যাবেন। (৫)

৫, রাসুল (সাঃ)-এর উপর সকালে ১০ বার ও সন্ধ্যায় ১০ বার দরুদ শরীফ পড়ুন এতে আপনি নিশ্চিত রাসুল (সাঃ)-এর সুপারিশ পাবেন। (৬)

৬, সকালে ১০০ বার ও বিকালে ১০০ বার সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহিল আজিম পরলে সৃষ্টিকুলের সমস্ত মানুষ থেকে বেশী মর্যাদা দেওয়া হবে। (৭)

৭, সকালে ১০০ বার ও সন্ধ্যায় ১০০ বার সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি পাঠ করলে কিয়ামতের দিন তার চেয়ে বেশী সওয়াব আর কারো হবে না। (৮)

৮, সকালে ও বিকালে ১০০ বার সুবহানাল্লাহ, ১০০ বার আলহামদুলিল্লাহ্‌, ১০০ বার আল্লাহু আকবার এবং ১০০ বার লা ইলা-হা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারীকা লাহু, লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু ওয়াহুয়া ‘আলা কুল্লি শাই’ইন কাদীর পাঠ করলে অগণিত সওয়াব হবে। (৯)

৯, বাজারে প্রবেশ করে- (লা ইলা-হা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারীকা লাহু, লাহুল মুলকু ওয়ালাহুল হামদু য়্যুহয়ী ওয়া য়্যুমীতু ওয়া হুয়া হাইয়ুল লা য়্যামূত, বিয়াদিহিল খাইরু ওয়াহুয়া ‘আলা কুল্লি শাই’ইন কাদীর)পাঠ করুণ এতে ১০ লক্ষ পুণ্য হবে, ১০ লক্ষ পাপ মোচন হবে, ১০ লক্ষ মর্যাদা বৃদ্ধি হবে এবং জান্নাতে আপনার জন্য ১ টি গৃহ নির্মাণ করা হবে। (১০)

১০, বাড়িতে সালাম দিয়ে প্রবেশ করুণ এতে আল্লাহ তায়ালা নিজ জিম্মাদারিতে আপনাকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন। (১১)

১১, জামাতে ইমামের প্রথম তাকবীরের সাথে ৪০ দিন সালাত আদায় করুন এতে আপনি নিশ্চিত জাহান্নাম থেকে মুক্তি পেয়ে যাবেন। (১২)

১২, প্রতিমাসের আয়ের একটা অংশ এতিমখানা বা মসজিদ মাদ্রাসা বা গরিব-দুখি, বিধবা ও দুস্থদের মাঝে দান করবেন হোক সেটা অতি অল্প এতে আপনি আল্লাহ তায়ালার কাছে জিহাদকারির সমতুল্য হবেন। (১৩)

১৩, মহিলারা ৪টি কাজ করবেন,
১, ৫ ওয়াক্ত সলাত আদায় করবেন,
২, রমজানের ৩০ সিয়াম রাখবেন,
৩, লজ্জাস্থানের হেফাজত (পর্দা) করবেন,
৪,স্বামীর আনুগত্য করবেন
এতে জান্নাতের ৮ টির যে কোন দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। (১৪)

১৪, মসজিদে ফজরের সালাত আদায় করে বসে দোয়া জিকির পাঠ করুণ এবং সূর্য উঠে গেলে ২ রাকাত চাস্তের সালাত আদায় করুণ এতে প্রতিদিন নিশ্চিত কবুল ১ টি হজ্জ ও উমরার সওয়াব পাবেন। (১৫)

১৫, সাইয়িদুল ইস্তিগফার পাঠ করুন প্রতি ওয়াক্ত সালাতের পর।

শাদ্দাদ ইবনু আওস হতে বর্ণিত। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, সাইয়্যিদুল ইস্তিগফার হলোঃ হে আল্লাহ! আপনিই আমার রব। আপনি ব্যতীত আর কোন মাবূদ নেই। আপনিই আমাকে সৃষ্টি করেছেন, আর আমি আপনারই গোলাম। আর আমি আমার সাধ্য মত আপনার সঙ্গে কৃত প্রতিজ্ঞা ও অঙ্গীকারের উপর সুদৃঢ়ভাবে কায়িম আছি। আমি আমার প্রতি আপনার নি‘য়ামত স্বীকার করছি এবং কৃতগুনাহসমূহকে স্বীকার করছি। সুতরাং আমাকে মাফ করে দিন। কারণ আপনি ব্যতীত মাফ করার আর কেউ নেই। আমি আমার কৃতগুনাহের মন্দ ফলাফল থেকে আপনার কাছে আশ্রয় চাচ্ছি। যে লোক সন্ধ্যা বেলায় এ দোয়া পড়বে, আর এ রাতেই মারা যাবে, সে জান্নাতে প্রবেশ করবে। রাবী বলেন, অথবা তিনি বলেছেনঃ সে হবে জান্নাতী। আর যে লোক সকালে এ দোয়া পড়বে, আর এ দিনেই মারা যাবে সেও তেমনি জান্নাতী হবে।

আরবিতে: 
ﺍﻟﻠَّﻬُﻢَّ ﺃَﻧْﺖَ ﺭَﺑِّﻲ ﻟَّﺎ ﺇِﻟَﻪَ ﺇِﻟَّﺎ ﺃَﻧْﺖَ، ﺧَﻠَﻘْﺘَﻨِﻲ ﻭَﺃَﻧَﺎ ﻋَﺒْﺪُﻙَ، ﻭَﺃَﻧَﺎ ﻋَﻠَﻰ ﻋَﻬْﺪِﻙَ ﻭَﻭَﻋْﺪِﻙَ ﻣَﺎ ﺍﺳْﺘَﻄَﻌْﺖُ، ﺃَﻋُﻮﺫُ ﺑِﻚَ ﻣِﻦْ ﺷَﺮِّ ﻣَﺎ ﺻَﻨَﻌْﺖُ، ﺃَﺑُﻮﺀُ ﻟَﻚَ ﺑِﻨِﻌْﻤَﺘِﻚَ ﻋَﻠَﻲَّ، ﻭَﺃَﺑُﻮﺀُ ﺑِﺬَﻧْﺒِﻲ ﻓَﺎﻏْﻔِﺮ ﻟِﻲ ﻓَﺈِﻧَّﻪُ ﻟَﺎ ﻳَﻐْﻔِﺮُ ﺍﻟﺬُّﻧُﻮﺏَ ﺇِﻟَّﺎ ﺃَﻧْﺖَ
উচ্চারণঃ আল্লাহুম্মা আনতা রাব্বি লা-ইলাহা ইল্লা আনতা, খালাক্বতানি ওয়া আনা আ’বদুক, ওয়া আনা-আ’লা আহ’দিকা ওয়া-ওয়াদিকা মাস্তা-তোয়া’ত, আ’উযুবিকা মিন শাররি মা-ছানাআ’ত আবু-উ-লাকা বিনি’মাতিকা আলায়্যা ওয়া-আবু-উ-বি-যানবি, ফাগফিরলী, ফা-ইন্নাহু লা ইয়াগফিরুযযুনুবা ইল্লা-আনতা।
[বুখারি ৬৩০৬] আধুনিক প্রকাশনী- ৫৮৭৮, ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৫৭৭১)

তথ্যসূত্রঃ 

(১) সহিহ মুসলিম, হাদিস নং- ২৩৪। (২) সহিহ নাসাই, সিলসিলাহ সহিহাহ, হাদিস নং- ৯৭২। (৩) সহিহ মুসলিম, হাদিস নং- ১২২৮। (৪) সহিহ মুসলিম, মিশকাত হাদিস নং- ১৮০৩) । (৫) সহিহ নাসাই, সহিহ তারগিব, হাকিম হাদিস নং- ৩৮৩৯, সিলসিলাহ সহিহাহ, হাদিস নং- ১১৪০। (৬) তবরানি, সহিহ তারগিব, হাদিস নং- ৬৫৬ । (৭) সহিহ আবু দাউদ, হাদিস নং- ৫০৯১। (৮) সহিহ মুসলিম, হাদিস নং- ২৬৯২। (৯) নাসাই, সহিহ তারগিব, হাদিস নং- ৬৫১। (১০) তিরমিজি, হাদিস নং- ৩৪২৮,৩৪২৯। (১১) ইবনু হিব্বান, হাদিস নং- ৪৯৯, সহিহ তারগিব, হাদিস নং- ৩১৬। (১২) তিরমিজি, সিলসিলাহ সহিহাহ, হাদিস নং- ৭৪৭, সহিহ তারগিব, হাদিস নং- ৪০৪)। (১৩) সহিহ বুখারি, হাদিস নং- ৬০০৭। (১৪) সহিহ ইবনু হিব্বান, হাদিস নং- ৪১৬৩ । (১৫) তিরমিজি, তারগিব হাদিস নং- ৪৬১।
সহীহ বুখারী (তাওহীদ)
অধ্যায়ঃ ৮০/ দোয়াসমূহ (كتاب الدعوات)
হাদিস নম্বরঃ ৬৩২৩

(বি দ্রঃ শির্ক, বিদআত ও হারাম উপার্জন/ভক্ষণ থেকে দূরে না থাকলে কোন দোয়াই কবুল হয় না)

[পুনশ্চঃ ফরয ইবাদত ও ইসলামের মুল বিষয় গুলো পালনের পাশাপাশি এই আমল গুলো করলে জান্নাতে যাবার পথ সহজ করবে। কিন্তু কেউ যদি ইসলামের মূল বিষয়গুলো পালন না করে শুধু এই আমল করেন তাহলে ফলপ্রসূ হবে না। তাই ইসলামের মূল খুটি আকরে ধরে এই আমল গুলো করতে হবে ইনশাআল্লাহ।
মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকলকে এই আমল করার তৌফিক দান করুন আল্লাহুম্মা আমিন।
সাবেকঃ- ইমাম ও খতিব কদমতলী মাজার জামে মসজিদ সিলেট।

Thursday, January 9, 2020

9:28 AM

টেকনাফের পাহাড় থেকে রোহিঙ্গা কিশোরীর লাশ উদ্ধার

desk-//
কক্সবাজারের টেকনাফ দমদমিয়া পাহাড়ি এলাকা থেকে নিখোঁজ সাহেনা আক্তার (১২) নামে এক রোহিঙ্গা কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার বিকালে হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া কেয়ারি জাহাজ ঘাটের পশ্চিম দিকের একটি পাহাড়ের ভেতর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। গত ৭ জানুয়ারি নিহত কিশোরী রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে নিখোঁজ হয়েছিল বলে জানায় তার পরিবার।

নিহত কিশোরী হ্নীলা নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের বি ব্লকের ১০৬৯ নং শেডের ১ নং রুমের ৬১১৯৫ নং এমআরসিধারী মো. আব্দুলাহর মেয়ে।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) এবিএমএস দোহা সিাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি বলেন, ‘স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহের সুরুতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা এই কিশোরীকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে জঙ্গলে ফেলে যায়। তার গলায় মুখ ও কানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। 

Thursday, December 19, 2019

5:40 AM

ভাতিজার শাবলের আঘাতে চাচা খুন

DESK NEWS-
চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার কয়া গ্রামে ভাতিজার শাবলের আঘাতে চাচা ইসরাফিল হোসেন (৩৫) খুন হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকাল ৫টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় পুলিশ ভাতিজা মিলনকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আটক করেছে। নিহত ইসরাফিল হোসেন কয়া মসিজদ পাড়ার ইদ্রিস আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, আজ সকালে জমি সংক্রান্ত পারিবারিক বিরোধের জের ধরে চাচা ইসরাফিলের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়ে ভাতিজা মিলন। একপর্যায়ে মিলন ঘর থেকে শাবল বের করে ইসরাফিলের মাথায় আঘাত করে। পরে ইসরাফিলকে গুরুতর জখম অবস্থায় জীবননগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে যশোর হাসপাতালে রেফার করে। বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইসরাফিল যশোরে মারা যায়।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বিডি২৪লাইভকে বলেন, এ ঘটনায় ভাতিজা মিলনকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
5:33 AM

দিনে পুলিশের সোর্স, রাতে ইয়াবা ব্যবসা ও জলদস্যুতা

DUMMY PIC
NEWS DESK//
ফের বেপরোয়া হয়ে উঠছে কক্সবাজারের উপকূলীয় অঞ্চলের সন্ত্রাসীরা। আতঙ্কিত হয়ে উঠছে উপকূলীয় সাধারণ মানুষ। কক্সবাজার জেলার উপকূলের সদর, টেকনাফ, উখিয়া, মহেশখালী, পেকুয়া, কুতুবদিয়া, বাঁশখালী, আনোয়ারা থানা পুলিশের তালিকায় ৭০ শতাংশ অপরাধীর নাম থাকলেও ৩০ শতাংশ অপরাধী নানাভাবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়ন্ত্রণের বাইরে। ইদানীং তারা নিজেরাই দল বেঁধে ইয়াবা ব্যবসা, সন্ত্রাসী ও জলদস্যুতা করার জন্য মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। সূত্র জানায়, দিনে পুলিশের সোর্স, রাতে ইয়াবা ব্যবসা ও জলদস্যুতার কাজে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, সারা দেশে ইয়াবা ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী ও জলদস্যুদের বিষয়ে সরকার জিরো টলারেন্স ঘোষণা করলে অনেক ইয়াবা ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী ও জলদস্যু আত্মসমর্পণ করে পুনর্বাসিত হয়। অনেকে এলাকা ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়ে আত্মগোপনে ছিল। আবার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শুদ্ধি অভিযানে অনেকে আত্মরক্ষার জন্য দেশত্যাগ করে বিদেশে পাড়ি জমায়। উপকূলের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তালিকাভুক্ত জলদস্যুদের অধিকাংশ আটক ও আত্মসমর্পণ করলেও ইদানীং ১৮ থেকে ২০ জন ফের বেপরোয়া জলদস্যু নতুনভাবে সাগরে এবং উপকূলে ডাকাতি, সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালানোর জন্য গ্যাং গঠন করেছে। আবার অনেক তালিকাভুক্ত জলদস্যু আত্মরক্ষার জন্য পুলিশের সোর্সের কাজ করছে। তারা এখন এলাকায় চাঁদাবাজি ও মাসোহারা আদায় করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মহেশখালী দ্বীপে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আত্মসমর্পণকারী এক জলদস্যু সর্দার জানান, ইদানীং কুতুবদিয়া দ্বীপের উপকূলে উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের কানা দিদার, সাহেদ, আবদু সমদ প্রকাশ পিতলা বাদশা, আবুইয়্যা, আবদুল মজিদ, আবদু শুক্কুর, দিদার (সোর্স) ছুট্টো, কৈয়ারবিলের প্রকাশ নাম লেডাইয়া, পালতু বাদশা, লেমশীখালীর ইসহাক, মানিক, বাঁশখালী উপকূলের ছনুয়ার জাহাঙ্গীর আলম, গফুর, আঙুল কাটা জব্বার, ভান্ডারী, আকতার, পেকুয়া উপকূলের রাজাখালী এলাকার জাকির, সেলিম, আরিফ, নাছিরসহ অনেকে মিলে সাগরে জলদস্যুতা করার জন্য ৮ ডিসেম্বর রাতে গোপন বৈঠক করেছে সোর্স দিদারের বাড়িতে।

তিনি আরও জানান, এসব জলদস্যু সাগরে মাছ লুট করে চট্টগ্রামের ফিশারিঘাট ও বাঁশখালীর শেখেরখীলের মাছ ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করে থাকে। বিষয়টি নিয়ে কথা হলে কুতুবদিয়া থানার ওসি মো. দিদারুল ফেরদাউস জানান, গেল দুই বছরে অর্ধশত জলদস্যু ও শতাধিক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। ইদানীং কিছুসংখ্যক সন্ত্রাসী এলাকায় আনাগোনা করার খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ এ ব্যাপারে সতর্ক আছে।

Tuesday, August 27, 2019

10:31 AM

ফরিদপুরে আনোয়ার শেখের হত্যাকারীদের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন



নাজমুল হাসান নিরব,ফরিদপুর প্রতিনিধি- ফরিদপুর সদর উপজেলার চরমাধবদিয়া ইউনিয়নের গোয়ালেরটিলা গ্রামের আনোয়ার শেখের হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মঙ্গলবার দুপুরে মমিনখার হাট এলাকায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।


 মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন চরমাধবদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড.সরদার আউয়াল হাসান,যুগ্ন-সম্পাদক মোঃ হাতেম শেখ,১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার আঃ মালেক মোল্লা, চরমাধবদিয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য কেরামত আলী,আইন সহয়তা কেন্দ্র (আসুকের) বিভাগীয় সেক্রেটারী মো.আক্তার হোসেন আকাশ প্রমুখ।

 এসময় নিহত আনোয়ারের মা নুরজ্জাহান,পিতা- জালাল শেখ,স্ত্রী ফরিদা,বোন মাহফুজা,দুই মেয়ে ও এক ছেলেসহ পরিবারের অন্যন্য সদস্যারা কান্নায় ভেঙ্গে পরেন । তারা হত্যার সাথে জড়িত মোঃ মজনু ফকির, মোঃ শাহিন শেখ, ইদ্রিস মন্ডল, ,আলমাস, রবিজুল, সুজন ও কাউসারকে দূরত ফাঁসির দাবি জানান। পরে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের নিকট স্বারক লিপি প্রদান করেন। এই বিষয় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা জানান, এই হত্যার সাথে জড়িতদের সনাক্ত করা হয়েছে । ৪ জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে, বাকি আসামীদের গ্রেফতারে জন্য মামলার আইও কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

উল্লেখ্য গত ২৬/৫/২০১৯ইং নিহত আনোয়ার শেখ নিজ বাড়ি হতে হাট করার উদ্দ্যেশে বের হয় অনেক রাত হওয়ার পর সে বাড়ি ফেরেনি। পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজেও তাকে ঐরাতে পাইনি। পরের দিন ২৭/৫/১৯ইং সকালে ঐ এলাকার গোয়লেরটিলা মিনাজ উদ্দীন মোল্লা পাড়াস্থ রাস্তার পাশে মোতালেব শেখের মেহগনি বাগানে তার জবায় করা মৃত দেহ পরে থাকতে দেখে এলাকাবাসী । এই গঠনায় ফরিদপুর কোতয়ালী থানায় একটি এজাহার দায়ের করে নিহত আনোয়ারের স্ত্রী ফরিদা বেগম।